Website

ব্লগিং এ সফলতা পেতে যেসব বিষয় আপনাকে মেনে চলতে হবে!!

আসসালামু আলাইকুম কেমন আছেন আপনারা সবাই আশা করি সবাই আল্লাহর রহমতে সবাই ভাল আছেন আমিও আল্লাহর রহমতে আপনাদের দোয়ায় ভালোই রয়েছি আজকে আমি আবারো একটি আর্টিকেল নিয়ে আপনাদের মাঝে হাজির হলাম আমরা প্রতিনিয়ত চেষ্টা করি আপনাদেরকে নতুন নতুন আর্টিকেল উপহার দেয়ার চেষ্টা করি জানিনা কতটুকু সফল হয় কিন্তু প্রতিনিয়ত নানা রকম বিষয় আপনাদেরকে শেখার আপ্রাণ চেষ্টা করি আশা করি আপনারা আমাদের ওয়েবসাইটটি থেকে এই আর্টিকেল গুলো পড়ে নিজেদের জ্ঞান বৃদ্ধি করতে পারে তো আজকেও আমি আপনাদের মাঝে আরও একটি নতুন আর্টিকেল নিয়ে হাজির হয়েছি আশা করি আর্টিকেলটি আপনাদের উপকারে আসবে তাহলে চলুন কথা না বাড়িয়ে আজকের আলোচনা শুরু করি

আজকে আমরা যে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করতে যাচ্ছি

বর্তমানে আমাদের মাঝে অনলাইনে অনেকগুলো কাজ রয়েছে যেগুলো কাজ করার মাধ্যমে কিছু হলেও আমরা আমাদের পারিশ্রমিক পেয়ে থাকি আমরা যারা ইন্টারনেট জগতে আছি তারা সবাই ব্লগিং সম্পর্কে জেনে থাকি বর্তমান ব্লগিং একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয় ব্লগিংয়ের মাধ্যমে আপনারা জানেন আমাদের দেশ সহ অন্যান্য দেশের নানা রকম মানুষ তাদের জীবন পরিচালনা করছে এই ব্লগিং থেকে উপার্জন করে আজকে আমরা আলোচনা করতে যাচ্ছি কিভাবে ব্লগিং পরিচালনা করলে আপনিও সফল হতে পারে আমাদের এই আর্টিকেলটি আপনারা যদি খুব ধৈর্য্য সহকারে পড়েন তাহলে সব কিছুই বুঝতে পারবেন তো সবাইকে অনুরোধ রইলো ধৈর্যসহকারে আর্টিকেলটি পড়ার

ব্লগিং কি এটি আমরা মোটামুটি সবাই জানি ওয়েবসাইট খুলে সেখানেই নিজের হাতের কনটেন্ট পাবলিশ করে ট্রাফিক দের নানা রকম সুযোগ-সুবিধা দেওয়া ব্লগিং বর্তমান আমাদের দেশ থেকে শুরু করে অন্যান্য দেশে পৃথিবীর যে কোন অঞ্চলের মানুষ ব্লগিংয়ের মাধ্যমে উপার্জন করতে পারছে আজকে আমরা কিছু বিষয় দেখাবো যেগুলো আপনাকে একজন বিগিনার ব্লগার হিসেবে সাহায্য করবে

ডোমেইন এবং হোস্টিং নির্ধারণ

আমরা সবাই জানি ব্লগিং করতে হলে অবশ্যই আমাদের একটি ওয়েবসাইট দরকার আর ওয়েবসাইট বানাতে হলে আপনাকে অবশ্যই ডোমেইন এবং হোস্টিং কিনতে হবে তা নির্ধারণ করতে হবে একজন ব্লগারের প্রথম যে দায়িত্ব নিজের ওয়েবসাইট ভালোভাবে তৈরি করা তৈরি করতে হলে আপনাকে অবশ্যই দুটি বিষয়ের উপর খুবই গুরুত্ব দিতে হবে সে দুটি বিষয় হলো ডোমেইন এবং হোস্টিং আপনাকে এমন এর সাথে এড করতে হবে যে আপনার ইউজার ফ্রেন্ডলি হয় ডোমেইন এবং হোস্টিং নিয়ে নিচে আলোচনা করা হলো

ডোমাইনঃ ওয়েবসাইট বানানোর সর্বপ্রথম আপনাকে যে কাজটি করতে হবে একটি সুন্দর ডোমেইন নির্ধারণ করতে হবে যারা ব্লগিং করে বা শুরু করবে তারা অবশ্যই ডোমেইন সম্পর্কে ভালো ধারণা রাখতে হয় আপনাকে আপনার নিশ অনুযায়ী একটি ডোমেইন নেম সিলেক্ট করতে হবে এখানে আমরা একটা বিষয় নিয়ে এসেছে সেটি হল নিস সিলেক্ট ব্লগিং অনেক ক্যাটাগরিতে হয়ে থাকে তো প্রথমে আপনাকে নিস সিলেক্ট করতে হবে আপনি কোন বিষয় নিয়ে কাজ করতে চান আপনি যে বিষয়ে লিখতে পারেন আপনার সে বিষয়ে নিশ্চিত করা উচিত মনে করুন আমাদের ওয়েবসাইট টেক রিলেটেড একটি ওয়েব সাইট এখানে আমি এক রিলেটেড কনটেন্ট পাবলিশ করার চেষ্টা করি বা বলতে গেলে আমি কন্টেন লেখার ক্ষেত্রে টেক রিলেটেড লিখতে পারি তাই আমি আমার ওয়েবসাইটটির নাম মাধ্যমে নির্ধারণ করেছে রিলেটেড যেমন বিডি টপ টেক ডট কম আপনারা যে বিষয়ে ভাল কনটেন্ট লিখতে পারেন বা আপনার আইডিয়া রয়েছে সে বিষয়ে নিশ্চিত করবেন এবং সেই অনুযায়ী একটি ডোমেইন নেম সিলেক্ট করবেন আপনারা জানেন ডোমেইন কিনতে হয় এজন্য আপনাকে ডোমেইন কেনার জন্য ভালো কোম্পানি যেমন নেইমচিপ এর মতো ভালো ডোমেইন কোম্পানি সিলেক্ট করতে হবে যা থেকে আপনারা খুব ভালো পরিমাণে সেবা পেয়ে থাকেন তো প্রথমে আপনি আপনার ডোমেইন নির্ধারণ করা হয়ে গেলে এবার আর পরের ধাপে যেতে পারেন

হোস্টিংঃ ডোমেইন এর পাশাপাশি হোস্টিং একটি ওয়েবসাইট বানানোর জন্য খুবই দরকারি এবং অবিচ্ছেদ্য উপাদান আপনি হোস্টিং ছাড়া কখনোই একটি ওয়েবসাইট বানাতে পারবেন না এক্ষেত্রে আপনি হোস্টিং নিতে পারেন। হোস্টিং কিনেন তাহলে অনেক সুবিধা ভাল পাবেন আর তাহলে আপনাকে ভালো হোস্টিং প্রোভাইডার এর সাথে যোগাযোগ করে আপনার ওয়েবসাইটের জন্যে হোস্টিং কিনতে হবে কারণ এই হোস্টিং আপনার যদি ভালো না হয় তাহলে আপনি ভালোভাবে আপনার ওয়েবসাইটটি চালিয়ে নিতে পারবেন না আর ওয়েবসাইটির না চালালে আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর আসবেনা এজন্য আপনাকে অবশ্যই ভালো হোস্টিং প্রোভাইডার এর কাছ থেকে আপনার হোস্টিং নিতে হবে আর কতটুকু হোস্টিং নিতে হবে এটা আপনার উপর নির্ভর করে।

থিমঃ আপনার ডোমেইন হোস্টিং এবং আপনার ওয়েবসাইট বানানো হয়ে গেলে এবার ওয়েবসাইট এর আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ রয়েছে আমরা সবাই জানি আমাদের ওয়েবসাইটটি একটি থিম দরকার আপনি যেহেতু ব্লকিং করবেন সেও তো আপনাকে ব্লগিং রিলেটেড থিম সিলেক্ট করতে হবে থিম সিলেক্ট করার ক্ষেত্রে আপনাকে অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে থিমটি যেন খুব ভালো হয় এবং ইউজার ফ্রেন্ডলি হয়ে থাকে অনেক সময় থিমের উপর নির্ভর করে আপনার ওয়েবসাইটের স্পিড আপনি যদি ভালো থিম এবং ভালো হোস্টিং প্রোভাইড করেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইটের স্পিড খুব ভালো হবে যা পরবর্তীতে আপনার সাইটে আসা ইউজারদের আকর্ষিত করবে এখন আপনি যদি ভাল সিন এবং ভালো হোস্টিং প্রোভাইডার করেন তাহলে আপনার ওয়েবসাইটটি খুব স্লো হয়ে যাবে এবং আপনার ওয়েবসাইটে ঢুকতে অনেকক্ষণ লোডিং নিবে জন্য এখানে আসবে না যেহেতু এখানে তাদের সময় বেশি লাগছে।

কনটেন্ট রাইটিং

কন্টেন কে সবথেকে বেশি গুরুত্ব দেয়া হয় ব্লগিং ব্লগাররা কন্টেন কি ব্লগিং-এর রাজা মনে করে থাকে তাহলে বুঝতেই পারছেন ব্লগিং এর সফলতা আনার ক্ষেত্রে কতটা ভূমিকা পালন করে আপনি ব্লগিং করতে হলে আপনাকে মূল যে কাজটি পারতে হবে সেটি হল কনটেন্ট

আপনি যদি ভাল কনটেন্ট রাইটিং করতে পারেন তাহলে আপনি খুব সহজেই ব্লগিং এর সফলতা অর্জন করতে পারবেন আর আপনি যদি ভাল কনটেন্ট রাইটিং করতে না পারেন তাহলে অবশ্যই আপনাকে ব্লগিং করার আগে কনটেন্ট রাইটিং শিখে নিতে হবে কারণ হয়তো আপনি ইতিমধ্যেই বুঝেই গেছেন কন্টেন কতটা গুরুত্বপূর্ণ ব্লগিং এর জন্য দুই ভাগে ভাগ করা যায় যে কোন একটা বিষয় নিয়ে বিশ্লেষণ করা আরেকটি হলো রিভিউ দেওয়া এই দুটি বিষয় কে আমরা যদি একটি উদাহরণের মাধ্যমে বুঝিয়ে দিই তাহলে বিষয়টি আমরা খুব সহজে বুঝবে এখন আমরা যে কনটেন্টটি পড়তেছি এটি হলো একটি বিশ্লেষণ করা কন্টেন এখানে আমরা ব্লগিং কে কিভাবে সফলতা অর্জন করব তা নিয়ে আলোচনা করতেছি এখন ধরুন আপনারা কি নতুন ফোন কিনবেন কিন্তু আপনারা যে ফোনটি কিনতে চাচ্ছেন সেটি সম্পর্কে বেশ কিছু ধারনা নাই এজন্য আপনি সার্চ ইঞ্জিন থেকে সার্চ করে নিলেন আপনার ফোনটি তথ্য এখন এই ফোনটিতে নানা রকম তথ্য রয়েছে এই তথ্যগুলো দিয়েছে আর্টিকেলটি যেকোনো ওয়েবসাইটের লেখা হয়েছে সেটিকে রিভিউ কনটেন্ট বলা হয়ে থাকে যেকোনো বিষয় দিয়ে বা যেকোনো পণ্য নিয়ে একটি ছোটখাটো রিভিউ দিয়ে থাকলে সে কনটেন্টটি কে আমরা রিভিউ কনটেন্ট বলে থাকি আপনার নিজ অনুযায়ী আপনাকে নানারকম কনটেন্ট প্রতিনিয়ত আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করতে হবে আপনাকে প্রথমত ভালো মানের কনটেন্ট আপনার ওয়েবসাইটে পাবলিশ করতে হবে প্রতিনিয়ত এই কাজটি করলে আপনি অনেকাংশে এগিয়ে যাবেন সফলতার দিকে অনেককে দেখা যায় যে তারা প্রতিনিয়তঃ কনটেন্ট পাবলিশ করে না তাদের ওয়েবসাইটে সেক্ষেত্রে তারা ভালোমতো ভিজিটর পায়না এজন্য আপনাকে অবশ্যই প্রতিনিয়ত আপডেট দিতে হবে আপনার ওয়েবসাইটে

seo করা

কনটেন্ট রাইটিং এরপর আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ কাজ হল এসইও করো আমরা সবাই জানি আমরা ব্লগিং করি ভিজিটরের আশায় আপনার ওয়েবসাইটে যদি ভিজিটরের না আসে তাহলে আপনারা কিভাবে আপনার ব্লগিং দ্বারা সফলতা অর্জন করবেন ভালো কন্টেন্ট রাইটিং এর পর আপনাকে অবশ্যই আপনার কনটেন্ট এর জন্য এসইও এবং আপনার ওয়েবসাইটের জন্য এসইও করতে হবে এসইওর মাধ্যমে আমরা জানি গুগল বা অন্যান্য সার্চ ইঞ্জিন থেকে আপনার ওয়েবসাইটে ভিজিটর আসে এই বিষয়গুলো আপনার সফলতা কে আরো বাড়িয়ে দিবে এই বিচারের জন্য আমরা ব্লগিং করে থাকে তাদের মাধ্যমে আমরা আমাদের লক্ষ্যে পৌঁছে যেতে পারি আপনাকে প্রথম কাজ হলো আপনার ওয়েবসাইটের জন্য ভালোমতো এসইও করা আপনি যদি এসইও করতে অক্ষম হন তাহলে আপনাকে ভালো কোন এসইও করে এমন ব্যক্তির কাছ থেকে আপনার ওয়েবসাইটের জন্য এসইও করতে হবে এবং আপনাকে অবশ্যই আস্তে আস্তে এসইও করা শিখতে হবে আপনি যদি এসইও না শিখেন তাহলে আপনি কতদিন অন্যের কাছ থেকে এসইও করে নিবেন আপনার ওয়েবসাইটের জন্য এজন্য আপনাকে এসইও শিখতে হবে এবং আপনার ওয়েবসাইট এবং কন্টেনের জন্য প্রতিনিয়ত এসইও করতে হবে আমরা কন্টেন লিখে থাকি কিন্তু ভালো মত কিওয়ার্ড রিসার্চ করি না এদিকে আপনাদের অবশ্যই লক্ষ্য রাখতে হবে একটি কনটেন্ট পাবলিশ করার জন্য আপনাকে আগেই আপনার কোনটি রিলেটেড কয়েকটি কীওয়ার্ড নির্বাচন করতে হবে কিওয়ার্ড সম্পর্কে আমরা কমবেশি সবাই একটু ধারণা নাকি এটি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো না পরবর্তীতে এটি নিয়ে আলোচনা করার সুযোগ থাকলে আমরা আলোচনা করব

আজকে এ পর্যন্তই এগুলো বিষয় নিয়ে আমরা আলোচনা করলাম এই বিষয়গুলো যদি আপনারা খুব ভালোভাবে লক্ষ্য করেন তাহলে আপনারা খুব সহজেই ব্লগিং এর দ্বারা সফলতা অর্জন করবেন আপনাদের জন্য শুভকামনা রইল পরবর্তী আর্টিকেল না আসা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন পরবর্তী আর্টিকেলে আমরা আরো নতুন কোন বিষয় নিয়ে আপনাদের মাঝে আলোচনা করব সে পর্যন্ত ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন আমাদের ওয়েবসাইটটিতে প্রতিনিয়ত ভিজিট করুন এরকম আরো নিত্যনতুন আর্টিকেল পেতে আল্লাহাফেজ

Ashik

আমি আশিক। আমি একজন ব্লগার। নিজে জানতে এবং অন্য কে জানাতে পছন্দ করি। আমি যা জানি তা এই ওয়েবসাইটে এর মাধ্যমে সবাইকে জানানোর চেষ্টা করি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button